Home / বাংলা টিপস্ / শীতের মাঝেও নিখুঁত নজরকাড়া ত্বক পাবার কৌশল।

শীতের মাঝেও নিখুঁত নজরকাড়া ত্বক পাবার কৌশল।

শীত মানেই বিয়ের দাওয়াত। বিয়ে ছাড়াও নানা পার্টির দাওয়াতও থাকবেই। মজার ব্যাপার হচ্ছে এসময় ঘামের উৎপাত থাকে না বলে সাজগোজে থাকে না কোনো বাধা।

তাইতো মন ভরেই সাজা যায় এই মৌসুমে। তবে শুধু সাজলেই কি হয়? দেখতেও ভালোলাগা জরুরি! শীতে ত্বকের নানা সমস্যার কারণে সাজলেও তা অনেকসময় ঠিকভাবে বসে না। তাই এসময় সাজগোজ শুরু করার আগে এসব মাস্কের যেকোনো একটি মুখে মেখে কিছুক্ষণ রেখে তারপর ধুয়ে নিন। এর ফলে আপনার নজরকাড়া নিখুঁত ত্বক দেখে মুগ্ধ হবে সবাই-

শীতে ত্বকের শুষ্কতা একটি বাড়তি যন্ত্রণা। কারণ শুষ্ক ত্বকে কোনো সাজই মানায় না। আবার শুষ্কতা থেকে দেখা দিতে পারে চুলকানির মতো সমস্যাও। এই সমস্যা দূর করতে একটি ডিম ফেটিয়ে নিয়ে তাতে পরিমাণ মতো গুঁড়া করা আমন্ড বাদাম মেশান। মুখে আর গলায় মিশ্রণটি সমানভাবে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। রাতে শোয়ার আগে লাগাতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়। পানি দিয়ে ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার বা নাইটক্রিম মেখে নিন।

শীতের রুক্ষতাকে জব্দ করতে গ্লিসারিন একাই একশো। আর তার সঙ্গে যদি মেশে অ্যালোভেরার গুণ, তবে তো কথাই নেই। পরিমাণ মতো অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে অল্প গ্লিসারিন মিশিয়ে সেই মিশ্রণটা সারা মুখে লাগিয়ে নিন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন। ত্বক হবে কোমল।

দুটি ছোট গাজর নিয়ে মিহি করে চটকে নিন। চটকানো গাজরে দুই থেকে তিন চামচ মধু মেশান। এই মিশ্রণটা মুখে আর গলায় ভালোভাবে মেখে ১৫ মিনিট রাখুন। মুখ ধুয়ে ফেললেই ঝলমলে উজ্জ্বল ত্বক স্বাগত জানাবে আপনাকে। সেনসিটিভ ত্বকের জন্য এই মাস্কটি খুবই উপকারী।

> এক চা চামচ কমলালেবুর রসের সঙ্গে দুই চা চামচ টক দই মেশান। সারা মুখে এই মিশ্রণ বৃত্তাকারে ঘষে ঘষে মেখে নিন, তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। মুখের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এটি বেশ কার্যকরী।

Check Also

‘ডিম আর আলুর মাফিন’ ভিন্ন স্বাদের সকালের নাস্তায়।

সকালের নাস্তায় বেশিরভাগ সময় রুটি, ভাজি, ডিম, কলা, পাউরুটি ইত্যাদি খাওয়া হয়ে থাকে। কিন্তু প্রতিদিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *